রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজ/ইনস্টিটিউটসমূহে ১ম বর্ষ স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষা ২০২২-২৩

আজ আমি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজ/ইনস্টিটিউটসমূহে ১ম বর্ষ স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষা ২০২২-২৩ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আশা করি সবাই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন। তাহলে আর দেরি না করে চলুন বিস্তারিত জানা যাক।

ভর্তির আবেদন গ্রহণের তারিখঃ ২৫/০৭/২০২৩ দুপুর ১২.০০ টা থেকে

ভর্তির আবেদন গ্রহণের শেষ তারিখঃ ৩০/০৮/২০২৩ রাত ১২.০০ টা পর্যন্ত।

  • ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের মোট সিট – ৬২০ টি
  • কৃষি কলেজ/ইন্সটিটিউটসমূহের মোট আসন – ১০৮০ টি
  • মোট আসন – ১৭০০ টি।

মানবন্টনঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের C ইউনিটের অনুরূপ।

যারা গণিত উত্তর করবে তারা ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলোর জন্য মনোনীত হবে। আর যারা জীববিদ্যা উত্তর করবে তারা কৃষি কলেজ/ইন্সটিটিউটসমূহের জন্য মনোনীত  হবে। আর যারা জীববিজ্ঞান+গণিত দিবে তারা ইঞ্জিনিয়ারিং+কৃষি কলেজ দুটোর জন্যেই প্রযোজ্য হবে।

আরও পড়ুনঃ অপরিচিতা গল্পের সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর

আবেদন যোগ্যতাঃ –

১. এইচএসসি ২০২০/২১/২২ ও এসএসসি ২০১৬/১৭/১৮/১৯/২০ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

২. এসএসসি ও এইচএসসি দুইটাতে আলাদাভাবে জিপিএ ৩.৫ সহ মোট জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে।

ভর্তির জন্য আবেদন ফিঃ  আবেদন ফি মোট ৬৬০/- টাকা অনলাইনে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে।

অনলাইনে আবেদন নির্দেশিকা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ/ইনস্টিটিউটসমূহে ১ম বর্ষ স্নাতক/স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষা ২০২২-২৩ এর আবেদন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অনলাইনে সম্পন্ন করতে হবে। নিম্নে বর্ণিত পদ্ধতি অনুসরণ করে আবেদন করা যাবে।

আবেদন প্রক্রিয়া

১। মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা সংক্রান্ত তথ্য প্রদান

ওয়েবসাইটের হোম পেজে Start Application বাটনে ক্লিক করলে পরবর্তী পেজে প্রার্থীকে তার SSC/সমমান এবং HSC/সমমান উভয় পরীক্ষার রোল, শিক্ষাবোর্ড ও পাশের বছর প্রদান করতে হবে। সেই সাথে পেজে প্রদত্ত একটি ছবিতে দৃশ্যমান সংখ্যা ও অক্ষর (Captcha) যথাস্থানে ইনপুট দিতে হবে।

আরও পড়ুনঃ  একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া 2021-2022।

কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শিক্ষাবোর্ডের স্থলে প্রযোজ্যক্ষেত্রে Technical-Vocational , GCE (A লেভেল, O লেভেল) এর শিক্ষার্থীরা বোর্ডের স্থলে Others (GCE-A Level) সিলেক্ট করতে হবে।

সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে “Submit” বাটনে ক্লিক করলে প্রার্থীর মোবাইল নাম্বার প্রদানের পেজ পাওয়া যাবে। কোন আবেদনকারীর প্রয়োজনীয় তথ্যাদি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রদত্ত ডাটাবেজে না পাওয়া গেলে “Complain Box”-এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট অভিযোগ (প্রয়োজনীয় তথ্যাদিসহ) প্রদান করতে পারবে। প্রদানকৃত তথ্য পর্যবেক্ষণ করে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হবে।

২। মোবাইল নাম্বার / ইমেইল প্রদান এবং ভেরিফিকেশন

আবেদন প্রক্রিয়ার শুরুতেই প্রার্থীর মোবাইল নাম্বারটি নিশ্চিত করতে হবে। মোবাইল নাম্বারটি অবশ্যই প্রার্থীর নিজের অথবা অভিভাবকের হতে হবে। একই মোবাইল নাম্বার একাধিক প্রার্থীর জন্য ব্যবহার করা যাবে না। প্রার্থীর ভর্তি সংক্রান্ত সকল প্রকার তথ্য প্রদানের জন্য প্রদত্ত নাম্বারে যোগাযোগ করা হবে। মোবাইল নাম্বার সতর্কতার সাথে প্রদান করা প্রয়োজন। ভুল নাম্বার প্রদান করলে প্রার্থীর সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হবে না এবং এজন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।

সঠিক মোবাইল নাম্বার / ইমেইল প্রদানের পর “Submit“-এ ক্লিক করলে প্রদত্ত মোবাইল নাম্বার / ইমেইল -এ চার ডিজিটের একটি PIN নাম্বার পাঠানো হবে। প্রাপ্ত PIN নম্বরটি নির্ধারিত বক্সে লিখে “Verify PIN” এ ক্লিক করলে মোবাইল নাম্বার / ইমেইল নিশ্চিত হবে। মোবাইল নাম্বার / ইমেইল ভুল হলে “Edit” লিংকে গিয়ে সংশোধন করা যাবে।

Submit Application” বাটনে ক্লিক করলে প্রার্থীর আবেদন সম্পন্ন হবে এবং একটি স্লিপ দেখতে পাবে। উক্ত স্লিপে আবেদনকারীর ছবিসহ Application ID, Bill Number এবং সর্বমোট ফি এর পরিমাণ মুদ্রিত থাকবে। স্লিপটির নিচের দিকে অবস্থিত “Download Payslip” বাটন ক্লিক করে স্লিপটি প্রিন্ট বা সংরক্ষণ (Save) করা যাবে। এই স্লিপটি অবশ্যই “Admit Card” নয় কিন্তু প্রদত্ত তথ্য পরবর্তীতে প্রয়োজন হবে। OK বাটনে ক্লিকের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারবে।

আরও পড়ুনঃ  মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান ২০২৩ | Medical Question Solution 2023

৩। ছবি আপলোড

এই ধাপে আবেদনকারীকে সদ্য তোলা একটি 300×400 পিক্সেল সাইজের স্পষ্ট (Studio quality) রঙ্গিন JPG ফরমেটের ছবি আপলোড করতে হবে। ছবির ফাইল সাইজ কোন মতেই ১০০ কিলোবাইটের বেশি হতে পারবে না।

ছবির পেছনে এক রঙের হালকা ব্যাকগ্রাউন্ড থাকবে; ব্যাকগ্রাউন্ডে কোন গাছপালা, প্রাকৃতিক দৃশ্য ইত্যাদি গ্রহণযোগ্য হবে না। স্কুল/কলেজের ড্রেস পরিহিত ছবি ব্যবহার করা যাবে না। উল্লেখ্য যে, আবেদনের সময় প্রদত্ত ছবিই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য ব্যবহার করা হবে। সফটওয়্যারের সাহায্যে কোন রকম ইফেক্ট দেওয়া ছবি গ্রহণযোগ্য হবে না। প্রাথমিক আবেদনের সময় ছবি সংক্রান্ত কোন সংশোধন করা যাবে না।

৪। কলেজ/ইনস্টিটিউট পছন্দক্রম

আবেদনকালে অধিভুক্ত কলেজ/ইনস্টিটিউট সমূহের নামসহ চয়েস ফরম-এ পছন্দক্রম উল্লেখ করতে হবে।

৫। কোটার তথ্য প্রদান

কোটা সংক্রান্ত তথ্য (মুক্তিযোদ্ধা কোটা, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কোটা ও প্রতিবন্ধী কোটা) ভর্তি পরীক্ষার সময় OMR সীটের মাধ্যমে নেওয়া হবে।

৬। ফি প্রদান পদ্ধতি ও আবেদন নিশ্চিতকরণ

“Submit Application” বাটনে ক্লিক করলে প্রার্থীর আবেদন সম্পন্ন হবে এবং একটি Pay Now বাটন দেখতে পাবে। Pay Now বাটনে ক্লিক করে bKash / Rocket অ্যাকাউন্ট থেকে সরাসরি এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই ফি প্রদান করলে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। সংশ্লিষ্ট ফি প্রদান ব্যতিত আবেদন সম্পন্ন হবে না।

তথ্য সূত্রঃ রাবি অফিশিয়াল 

ধন্যবাদ সবাইকে।

Rate this post

Leave a Comment