বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা | বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোট কবিতা

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা – আসসালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠকবৃন্দ, কেমন আছেন সবাই। আশা করি সবাই ভালো আছেন। আপনি কি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন? তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য। আজকে আমি শেয়ার করব বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা নিয়ে। আশা করি সবাই মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

আমাদের মাঝে যারা ছোট রয়েছে তারা স্কুলের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় কবিতা আবৃত্তি করতে চায়। কিন্তু ছোট ছেলে মেয়েরা কঠিন উচ্চারণ করতে পারে না। যার জন্য তারা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারে না। আজকে আমরা আলোচনা করব বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা নিয়ে। এই কবিতা গুলো সহজ ভাষায় আলোচনা করা হয়েছে। তো চলুন শুরু করা যাক।

আরও পড়ুনঃ

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা

কবিতার নামঃ কাউকে ঠুকি সেলাম কী
লেখকঃ ইমতিয়াজ সুলতান ইমরান

স্বাধীনতা কী দিয়েছে
কে করে এই উচ্চারণ?
সে কখনো দেশপ্রেমিক নয়
তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হন।স্বাধীনতার লড়াই করে
মেনে নিতাম যদি হার
ভাবো দেখি আজ অবধি
থাকত হাতে গদি কার?গদি যদি থাকত হাতে
পাকিস্তানি শাসকের
থাকতে হত গোলাম হয়ে
ওই হারামি নাশকের।স্বাধীনতা না অর্জিলে
হওয়া যেত বাঙালি?
থেকে যেতাম সারাজীবন
পরাধীন আর কাঙালি।বলতে পারো স্বাধীন হয়ে
স্বাধীন দেশে পেলাম কী?
তেমন কিছু না পেলেও
কাউকে ঠুকি সেলাম কী?

কবিতার নামঃ বজ্রকণ্ঠের আহ্বান
লেখকঃ শচীন্দ্র নাথ গাইন

শেখ মুজিবের সাত মার্চের
অবিনাশী ভাষণ,
অত্যাচারী ইয়াহিয়ার
দেয় কাঁপিয়ে আসন।উদাত্ত তার অভয় বাণী
দেশের মানুষ জাগায়,
মুক্তি লাভের আশায় সবাই
সাহস নিয়ে আগায়।জনজোয়ার ফুঁসতে থাকে
শক্তি বাড়ে জাতির,
পাকির সাথে ছিন্ন হলো
সবরকমের খাতির।বজ্রকণ্ঠে উঠলে আওয়াজ
আকাশ-বাতাস কাঁপায়,
স্বাধীনতা আনতে রণে
বীর বাঙালি ঝাঁপায়।দুরাচারীর আইনকানুন
এক ভাষণেই বিকল,
রক্তক্ষয়ী লড়াই করে
ছিঁড়তে হলো শিকল।

কবিতার নামঃ মুজিব ছড়া

মুজিব ছড়া
ইমরান পরশমুজিব বাড়ি যাই
‘আয় ছেলেরা আয় মেয়েরা’
মুজিব বাড়ি যাই
টুঙ্গিপাড়া মুজিব বাড়ি
ভারি মজা পাই।

কবিতার নামঃ জাতির মিতা জাতির পিতা
লেখকঃ পৃথ্বীশ চক্রবর্ত্তী

আরও পড়ুনঃ  ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের কবিতা | বিজয় দিবসের কবিতা

জাতির তিনি মহান নেতা
বাঙালিদের পরম মিতা
শেখ মুজিব তাই জাতির পিতা।জাতির কষ্টে পেতেন ব্যথা
হয়ে ওঠেন তিনি নেতা
একাত্তরের রণাঙ্গনে
পাক হায়েনার জ্বালান চিতা;
শেখ মুজিব তাই জাতির পিতা।মুক্ত মনের স্বাধীনচেতা
মহান মুক্তিযুদ্ধে জিতা
শেখ মুজিব তাই জাতির পিতা।যার কাছে নেই ধনী-নির্ধন
সুখী-দুখী, মেথর-ব্রাহ্মণ
ভাবেনও না মিঠা-তিতা;
শেখ মুজিব তাই জাতির পিতা।মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান
সবাই সমান, নেই ব্যবধান
বেদ, বাইবেল, কোরান, গীতা;
শেখ মুজিব তাই জাতির পিতা।

কবিতার নামঃ জাতির পিতা
লেখকঃ শুভ বড়ুয়া

আমি নব প্রজন্মের তরুণ
আমি দেখিনি একাত্তর
তবু শুনেছি তোমার বজ্রধ্বনি
যা ছড়িয়েছে বহুদূর।
আমি জেনেছি তোমার কথা
ছিলে দেশেরপ্রতি অন্তপ্রাণ-
অন্যায়ের প্রতিবাদে,সোচ্চার সবখান।
তুমি রাখতে চাওনি মোদের
হয়ে হানাদারের ক্রীতদাস!
চেয়েছিলে তুমি হই নাগরিক
স্বাধীন সার্বভৌম বাংলার।
ও্ই হায়নারা পারেনি
মেনে নিতে পরাজয়
ঘাতকের ওই বুলেট
আজো বিকাষত করে এ হৃদয়।বিশাল মানচিত্রে তুমি দিয়েছে যে স্থান
তুমি হলে এ জাতির পিতা
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

কবিতার নামঃ বঙ্গবন্ধু
লেখকঃ শিমুল বড়ুয়া উনন

দাদুর কাছে শুনেছিলাম
বঙ্গবন্ধুর নাম-

টুঙ্গি পাড়ায় জন্ম তাহার

খোকা আদুরে নাম।

ছোট থেকেই দেশের প্রতি

খোকার ছিলো টান,

বড় হয়ে তিনিই হলেন

বাংলাদেশের প্রাণ।

জন্ম দিলো একটি জাতি

একটি নতুন দেশ,

সারা বিশ্ব অবাক হলো

সাবাস বাংলাদেশ।

কবিতাঃ লাল-সবুজের জমিনটাতে

শেখ মুজিবের বাস
মুজিব মানে জাতির পিতা
বিশ্ব ইতিহাস।স্বাধীনতার মহানায়ক
বিশ্বজয়ী বীর
মুজিব আমার জাতির পিতা
মুজিব বাঙালির।মহান মুজিবর
টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম হলেও
সবখানে তার ঘর
বাংলাদেশের প্রতিকণায়
জনক মুজিবর।লাল-সবুজ এই জমিনটাতে
কৃষক বধূর কল্পনাতে
বীর বাঙালির স্বপ্নজয়ী
মহান কারিগর।লক্ষ কোটি স্বপ্নে বোনা
এই মাটি হয় খাঁটি সোনা
দুঃখ সুখে রয় জড়িয়ে
তাই তো পরস্পর।

কবিতার নামঃ বন্ধু তুমি
লেখকঃ তাহমিনা কোরাইশী

পথ দেখালে তুমি সবার
দেশ ও জাতি জানে
লাল সবুজের পতাকাটি
তোমার স্বপ্ন মানে।তুমি হলে জাতির জনক
ধরলে জাতির হাল
তুমি হলে মহানায়ক
সাক্ষী মহাকাল।স্বাধীনতার শব্দ ফুলের
এইতো বাংলাদেশ
লাল সবুজের স্বপ্ন বুনন
সুখ শান্তি অশেষ।অনিবার্য সত্য এটি
তুমি জাতির পিতা
অনুসারী আমরা তোমার
চিরকালের পিতা।

আরও পড়ুনঃ  ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস ও কবিতা

কবিতার নামঃ অঙ্গুলি উঁচিয়ে
লেখকঃ উৎপলকান্তি বড়ুয়া

ভাষা গান সুরে কাছে আর দূরে
তুমি বলো নেই কীসে?
ফুল পাখি গাছ সব তুমি আজ
হয়ে আছ সবে মিশে।তুমি তো সকাল দুপুর বিকেল সন্ধ্যা রাত্রি ভোর
মুজিবুর তুমি স্বাধীনতা নামের খুলেছ আলোর দোর।মুজিবুর তুমি সাত মার্চের
রেসকোর্সের গর্জন,
দেশ মাটি মা’র জন্যেই হলো
বুকের কী টান অর্জন!অঙ্গুলি উঁচিয়ে দিয়েছিলে তুমি মহামন্ত্র সে বাণী
রক্তের পথ পেরিয়ে পেয়েছি প্রিয় স্বাধীনতাখানি

কবিতার নামঃ বঙ্গবন্ধু ভালোবাসেন
লেখকঃ রব্বানী চৌধুরী

বঙ্গবন্ধু ভালোবাসেন
বাংলাদেশের মাটি
তিনিই তো চেয়েছিলেন
সোনার বাংলা খাঁটি ।সোনার বাংলা সোনার
নতুন স্বপ্ন বোনার
জন্মভূমি সোনার বাংলা
মায়ের দুধের বাটি।

কবিতার নামঃ
লেখকঃ শিবুকান্তি দাশ

তেইশটা বছর পাকিস্তানের যাঁতাকলে পিষ্ট দেশ
উঠতে বসতে উস্টা লাথি বাঙালিদের জীবন শেষ
কেউ ছিল না রুখতে ওদের আঙ্গুল তোলেন শেখ মুজিব
রক্তলোলুপ আইযুব শাহীর লাল হয়ে যায় লম্বা জিব।
ছাত্র শিক্ষক নেতা সবাই একতার এক জোট বাঁধে
ভাষণ হবে ঢাকার বুকে কাস্তে কোদাল লাঙল কাঁধে
বাঁশের লাঠি সবার হাতে জুটল সবে রেসকোর্স মাঠে
সাতই মার্চ সকাল হতে অপেক্ষাতে প্রহর কাটে।
বীরের বেশে শেখ মুজিবুর এলেন তিনি দুপুর শেষে
দেয় হুঁশিয়ার আইয়ব খানকে জনতার সেই জোয়ারে ভেসে
এবারের সংগ্রাম, স্বাধীনতার সংগ্রাম। এবারের সংগ্রাম…
নতুন একটি দেশের নাম।দিকে দিকে পড়ল সাড়া সাজছে সবাই মুক্তিসেনা
দীর্ঘ ন’মাস লড়াই করে মিটিয়ে দেয় লেনাদেনা
বঙ্গবন্ধুর আসন হলো ‘জাতির পিতা’ সোনার দেশে
লাল সবুজের পতাকাতে আজো তিনি আছেন মেশে।

কবিতার নামঃ স্বাধীনতার পাখি
লেখকঃ মাহমুদুর রহমান খাঁন

একটি পাখি বন্দি খাঁচায়
জীবন যে তার দুখের
সারাটা দিন স্বপ্ন বুকে
মিলবে দেখা সুখের।একদিন পাখি গর্জে উঠে
ভাঙল শিকল খাঁচার
স্বপ্ন বুঝি সফল হলো
স্বাধীনভাবে বাঁচার।সেই খুশিতে মেলল ডানা
খুলল দুটি আঁখি
এই পাখিটি বাংলাদেশের
স্বাধীনতার পাখি।

কবিতার নামঃ একটি পাখি
লেখকঃ মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক

একটি দেশে একটি পাখির
কণ্ঠ শুনি রোজ
স্বর্গে ওড়া ওই পাখিটি
নিত্য করে খোঁজ
ওই পাখিটির কণ্ঠে ওড়ে
লাল সবুজের মেলা
শ্যামল দেশে ওই পাখিটি
খেলছে সারা বেলা
ওই পাখিটি অন্ধকারে
জ্যোৎস্না হয়ে ভাসে
শিশির হয়ে সবুজ বনে
রোজ সকালে হাসে
একটি দেশে একটি পাখি
উড়ছে প্রতিদিন
ওই পাখিটি শোধ করেছেন
সাত পুরুষের ঋণ।

আরও পড়ুনঃ  নতুন বছরের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

কবিতার নামঃ একটি কণ্ঠ
লেখকঃ মোরশেদ কামাল

বঙ্গবন্ধু নাম কুড়ালেন
হলেন জাতির পিতা
বঙ্গবন্ধু- বাংলার বন্ধু
বন্ধু মানে তো মিতা।তোমার বন্ধু হলাম আমি
আমার বন্ধু তুমি
কেউ কি শুনেছ? বন্ধু মেনেছে
কে এই জন্মভূমি!জাতির পিতা একজনই তো
একজনই জাতির চান
একটি কণ্ঠই বাঙালি জাতির
মুক্তির অবদান।

কবিতার নামঃ স্বাধীনতার কথা
লেখকঃ সোমের কৌমুদী

মার্চ এলেই মনে পড়ে সাত তারিখের ভাষণ
সেই লোকটি প্রিয় সবার, বড্ড বেশি আপন।মার্চ এলেই মনে পড়ে ভয়াল রাতের কথা
বুকের মাঝে ডুকরে ওঠে স্বজন হারার ব্যথা।মার্চ এলেই মনে পড়ে প্রিয় স্বাধীনতার কথা
দেশ পেয়েছি তোমার তরে, তুমি জাতির পিতা।ভুলবে তোমায় এই বাংলার যে নরাধম লোক
পশুর চেয়ে অধম সে তো, ধ্বংস তাহার হোক।বঙ্গবন্ধু তোমার কাছে ঋণের নেই তো শেষ
তোমায় ভালোবেসে আজো সবুজে শ্যামল দেশ।

কবিতার নামঃ অগ্নিঝরা মার্চ
লেখকঃ জসীম উদ্দীন মুহম্মদ

বছর ঘুরে আবার এল
সেই অগ্নিঝরা মার্চ
এই মাসেই পাকবাহিনী
ডাকে অপারেশন সার্চ।৭ মার্চে বঙ্গবন্ধু দিলেন
স্বাধীনতার ডাক
অস্ত্র হাতে বীর বাঙালি
দিল বিশাল হাঁক।ঘরে-বাইরে দুর্গ হলো
যুদ্ধে যাওয়ার ঢ্ল
পাকিরা সব দিশেহারা
কোথায় পেল বল।৭ মার্চের একটি ভাষণ
দেখেনি কি বিশ্ব?
বীর বাঙালি মরতে জানে
তাও হবে না নিঃস্ব।

কবিতার নামঃ একটা ভাষণ
লেখকঃ ইমরান আজিম

একটা ভাষণ শুনবে বলে
লক্ষ জনগণ
ব্যাকুল হয়ে আছে সবাই
বসে সারাক্ষণ।
দলে দলে আসছে মানুষ
থামার তো নেই শেষ
চারিদিকে খুশির আমেজ
দারুণ পরিবেশ।
বৃক্ষরাজি, তরু-লতা
অধীর অপেক্ষায়
মনে মনে তারাও যেন
মুজিবুরকে চায়।
অবশেষে মঞ্চে নেতা-
মুখর চারিদিক
এই ভাষণই আমরা তো ভাই
চেয়েছিলাম ঠিক।

শেষ কথা

আজকের পোস্টে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা শেয়ার করা হয়েছে। আশা করি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতাগুলো আপনাদের কাছে ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। আর কবিতা গুলোতে কোন ভুল থাকলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

5/5 - (1 vote)

1 thought on “বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোটদের কবিতা | বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ছোট কবিতা”

Leave a Comment