মোবাইল ফোনের চার্জ ধরে রাখার উপায়

আমরা সবাই প্রায় মোবাইল ফোন ব্যবহার করি। মোবাইলের ব্যাটারির চার্জ ফুরিয়ে গেলে এটা খুবই বিরক্তিকর। বিশেষ করে মোবাইল ব্যবহার করার সময় এটি ফোনের ব্যাটারির চার্জ ফুরিয়ে যাওয়ার সংকেত দেয়। এটা আসলে খুব বিরক্তিকর। তাই আপনাকে এই বিষয়ে আরও জানতে হবে।

কিন্তু আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন কত দ্রুত ব্যাটারি শেষ হয়? কত উপায়ে আপনি আপনার ব্যাটারির চার্জ বাঁচাতে পারেন? কিভাবে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি রক্ষা করবেন?

ফোনের চার্জ ধরে রাখার উপায়

আজকের ব্লগ পোস্টে আলোচনা করা হবে কীভাবে আপনার ব্যাটারির চার্জ দীর্ঘস্থায়ী করবেন এবং কীভাবে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি ভালো অবস্থায় রাখবেন। তাহলে শুরু করা যাক।

আরও পড়ুনঃ

1. যখন আপনি বাড়ি থেকে বের হন বা আপনি আপনার মোবাইল ফোনে নেটওয়ার্ক সিগন্যাল পান না বা শুধুমাত্র 1 পয়েন্ট নেটওয়ার্ক সিগন্যাল থাকে, তখন আপনি সেই সিগন্যালের সাথে কারো সাথে কথা বলতে পারবেন না বা আপনার কোন সিগন্যালের প্রয়োজন নেই৷ সেই ক্ষেত্রে, আপনি অবিলম্বে ফোনটিকে ফ্লাইড মোডে রাখুন। এয়ারপ্লেন মোড করলে আপনার ফোনের সকল সার্ভিস বন্ধ হয়ে যাবে এবং সেক্ষেত্রে আপনার মোবাইল ফোনের ব্যাটারি খরচ অনেক কম হবে।

2. আপনি যদি ফোনের ব্যাটারি খরচ বাঁচাতে চান, আপনি ভাইব্রেশন সিস্টেম বন্ধ করে সাইলেন্ট মোড চালু করতে পারেন অথবা আপনি খুব কম ভলিউমে রিংটোন সেট করতে পারেন। কারণ একটি মোবাইলের ভাইব্রেশন মোড চালু থাকলে অনেক ব্যাটারি নষ্ট হয়।

আরও পড়ুনঃ  আজকের খেলা লাইভ ক্রিকেট এবং ফুটবল দেখার উপায় | লাইভ ক্রিকেট ও ফুটবল দেখার নিয়ম

3.অপ্রয়োজনীয় মোবাইল ফোন বিজ্ঞপ্তি বন্ধ করুন। নোটিফিকেশন চালু আছে এমন অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ বন্ধ করুন। কারণ প্রতিবার নোটিফিকেশন আসলেই বারবার আপনার ফোনের আলো জ্বালায়, ব্যাটারি খরচ বেশি হয়। এবং সেই কারণে, আপনি সেগুলি বন্ধ করে অনেক ব্যাটারি খরচ বাঁচাতে পারেন।

4.আপনি যদি আপনার মোবাইল ফোনের ব্যাটারি বাঁচাতে চান তাহলে কখনই অ্যানিমেটেড ওয়ালপেপার ব্যবহার করবেন না৷ কারণ অ্যানিমেটেড ওয়ালপেপার অ্যানিমেট করার সময় অনেক ব্যাটারি খরচ করে। পরিবর্তে আপনি কালো ওয়ালপেপার ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনার ফোনের ব্যাটারি খরচ কমে যাবে।

5.আপনার মোবাইল ফোনের ডিসপ্লের আলো কম রাখুন। কারণ ডিসপ্লের আলো বেশি হলে ফোনের ব্যাটারি খরচ হয় সবচেয়ে বেশি। আপনার ফোনের উজ্জ্বলতা যত বেশি হবে, ব্যাটারির চার্জ তত বেশি নষ্ট হবে। তাই ব্যাটারির চার্জ বাঁচাতে চাইলে উজ্জ্বলতা কম রাখুন। রাতে মোবাইল ব্যবহার করার সময় মোবাইলের নাইট মোড অপশন ব্যবহার করুন।

6.আপনার মোবাইল ফোনের স্বয়ংক্রিয় লকের সময়কাল টাইম কমিয়ে করুন৷ কারণ আপনার ফোনটি যদি অটো লক থাকে তাহলে লক না হওয়া পর্যন্ত এটি অন থাকে। তাই ব্যাটারি নষ্ট হয়। সেক্ষেত্রে, আপনি যদি মোবাইল ফোনের ব্যাটারি চার্জ খরচ কমাতে চান, তাহলে ফোনের অটোলক সময়কাল সর্বনিম্ন স্তরে সেট করুন।

7.আপনি যদি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন তবে কাজের পরে সর্বদা মোবাইল ডাটা বন্ধ করুন। কারণ ডাটা সবসময় অন থাকলে ফোনের অ্যাপগুলোর ব্যাকগ্রাউন্ড সিস্টেম চালু থাকে। আর এর ফলে ব্যাটারির চার্জ অনেকটাই নষ্ট হয়। তাই ব্যাটারির চার্জ বাঁচাতে চাইলে ডাটা সিস্টেম বন্ধ রাখুন।

8.যখন আপনি মনে করেন আপনার পরবর্তী দুই-তিন ঘন্টার জন্য আপনার মোবাইল ফোনের প্রয়োজন নেই। মোবাইল ফোন সঙ্গে রাখতে হবে, সেক্ষেত্রে সঙ্গে সঙ্গে ফোনটিকে এয়ারপ্লেন মোডে রাখুন। সেক্ষেত্রে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি অনেক কম খরচ হবে।

আরও পড়ুনঃ  সকল সিমের প্রোমোশনাল এসএমএস বন্ধ করার নিয়ম

9.মোবাইল ফোন 0% চার্জ করবেন না। এটি খুব সহজেই আপনার ব্যাটারির ক্ষতি করতে পারে এবং ধীরে ধীরে মোবাইল ফোনের চার্জ ধরে রাখার ক্ষমতা হারাবে। তাই যখন একটি নির্দিষ্ট শতাংশের মতো – 30% বা 40% চার্জ কমে আসে, তখন মোবাইল আবার চার্জ করুন। এতে আপনার ব্যাটারি ভালো থাকবে এবং আপনি আরও ভালো চার্জিং পারফরম্যান্স পাবেন।

10.মোবাইল ফোনকে কখনই চরম তাপমাত্রা এবং চরম নিম্ন তাপমাত্রায় রাখবেন না। কারণ মোবাইল ফোনের ব্যাটারি স্বাভাবিক ঘরের তাপমাত্রায় ভালো থাকে।

ফোনের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায়

আগে ফোনের ব্যাটারি খোলার ব্যবস্থা ছিল। কিন্তু বর্তমানে মোবাইলের ব্যাটারি খোলা যায় না অর্থাৎ অপসারণযোগ্য নয়। তাই ভালোভাবে বুঝে ফোনে চার্জ দিলে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি অনেকক্ষণ চলবে। ব্যাটারি ভালো অবস্থায় রাখার কিছু উপায় নিচে দেওয়া হলঃ

1.আপনার মোবাইল ফোন চার্জ করুন যখন আপনার মোবাইল ফোনে কমপক্ষে 20% চার্জ থাকে।

2.ফোন কখনই 100% চার্জ করবেন না। চার্জার খুলুন এবং 80% বা 90% হলেই ব্যবহার করুন৷

3.ফোন চার্জ করার সময় কখনই ব্যবহার করবেন না বা গেম খেলবেন না।

4.আপনার মোবাইলকে কখনোই গরম জায়গায় রেখে চার্জ করবেন না।

5.সারারাত মোবাইল চার্জ করবেন না।

6.সবসময় ফোনের আসল চার্জার দিয়ে চার্জ করার চেষ্টা করুন।

ভাল ব্যাটারি চেনার উপায়

আজকাল বাজারে আসল ব্যাটারি চেনা খুব কঠিন। তবুও, এখানে কিছু জিনিস রয়েছে যা আপনাকে আসল এবং নকল ব্যাটারি সনাক্ত করতে সহায়তা করবে।

1.ভাল মানের এবং ভাল কোম্পানির ব্যাটারি খুব ভাল প্যাকে করা হয়। আসল এবং নকল ব্যাটারি প্যাকের মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে।

2.ব্যাটারি প্যাকের তৈরি তারিখের সাথে ব্যাটারি বডির তারিখের সাথে মিল করুন। যদি এটি একই হয় তবে আপনি বুঝে নিবেন এটি একটি আসল ব্যাটারি।

3.ব্যাটারির গঠনের প্রতি গভীর মনোযোগ দিন। ব্যাটারি নকল হলে এর বডি এবং গঠন অসমান হবে। মেঝে প্লাস্টিক সঠিকভাবে মূল বডি সংযুক্ত করা হবে না এবং যদি ব্যাটারির গঠন খুব মসৃণ হয়, তবে এটি একটি আসল ব্যাটারি।

আরও পড়ুনঃ  আসল মোবাইল চেনার উপায়

4.ব্যাটারির সামনের ধাতব অংশ যেখানে এটি মোবাইলের সাথে সংযুক্ত হবে সেটি স্বচ্ছ হবে। এবং নকল ব্যাটারির ধাতব অংশগুলি অস্বচ্ছ হবে।

5.ব্যাটারিতে লেখার দিকে মনোযোগ দিন। আসল ব্যাটারি লেখা পরিষ্কার হবে। এবং নকল ব্যাটারি লেখা অস্বচ্ছ এবং অস্পষ্ট হবে।

6.প্যাক এবং ব্যাটারিতে কোম্পানির লোগো এবং QR কোড পরীক্ষা করুন। আপনি যদি স্ক্যানার দিয়ে QR কোড চেক করেন, আপনি খুব সহজেই আসল নকল ধরতে পারবেন।

মোবাইলের ব্যাটারির দাম কত?

বর্তমানে মোবাইলের বাজারে বিভিন্ন ধরনের মোবাইল রয়েছে। সেক্ষেত্রে মোবাইল ফোনের উপর নির্ভর করে ব্যাটারির দাম পরিবর্তিত হয়। মোবাইলের ব্যাটারির দাম সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা থেকে শুরু হয় এবং বিভিন্ন দাম রয়েছে।

কিন্তু ব্যাটারি কেনার সময় আপনার মোবাইলের কাস্টমার কেয়ার বা সার্ভিস সেন্টার থেকে ব্যাটারি কেনার চেষ্টা করুন। তাহলে আপনি আসল ব্যাটারি পাবেন এবং নিরাপদে ব্যবহার করতে পারবেন।

পুরানো ব্যাটারির দাম কত?

পুরনো মোবাইলের ব্যাটারির দাম নিয়ে লেখার কিছু নেই। পুরাতন ব্যাটারি বিভিন্ন দামে পাওয়া যায়। রাস্তার পাশে ফুটপাতে পুরনো মোবাইলের ব্যাটারি পাওয়া যায়। সেখান থেকে খুব কম দামে পুরনো ব্যাটারি কিনতে পারবেন। তবে আমার মতে পুরনো ব্যাটারি ব্যবহার না করাই ভালো।

আজকের পোস্ট থেকে কিভাবে ফোনের চার্জ ধরে রাখবেন আশা করি সবাই বুঝতে পেরেছেন। কোন কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে কমেন্ট বক্সে জানাবেন। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। ধন্যবাদ সবাইকে।

Rate this post

3 thoughts on “মোবাইল ফোনের চার্জ ধরে রাখার উপায়”

Leave a Comment