অবৈধ মোবাইল ফোন বৈধ করার উপায়

বিদেশী মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশনের নিয়ম – আপনি যদি বিদেশ থেকে মোবাইল ফোন আনতে চান বা কেউ আপনাকে উপহার পাঠিয়ে থাকে। তাহলে আপনাকে অবশ্যই সেই মোবাইল ফোনটি রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন না করলে মোবাইল ফোন অবৈধ ঘোষণা করা হবে। এমনকি আপনার মোবাইল ফোনের নেট পর্যন্ত চলে যাবে।

 

তাই আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করবেন যদি আপনি বিদেশ থেকে মোবাইল ফোন নিয়ে আসেন বা নিয়ে থাকেন। তাই পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

 

  বিদেশী মোবাইল নিবন্ধনের নিয়ম

আপনি যদি বিদেশ থেকে মোবাইল ফোন নিয়ে আসেন বা উপহার পেয়ে থাকেন, তাহলে যখনই আপনি বাংলাদেশের সিম দিয়ে একটিভ করবেন, আপনার মোবাইল সিমের নেটওয়ার্ক স্বয়ংক্রিয়ভাবে সক্রিয় হয়ে যাবে। যাইহোক, আপনাকে আপনার মোবাইল ফোন সক্রিয় করার 10 দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। আপনি যদি 10 দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন না করেন তবে আপনার মোবাইল ফোনটি বৈধ বলে বিবেচিত হবে না। এক কথায় এটি একটি অবৈধ মোবাইল ফোন।

 

আর এই দশ দিন পর, আপনি আপনার মোবাইলে একটি এসএমএস পাবেন যে আপনাকে আপনার মোবাইল ফোনটি রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তিন মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন না করলে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এখন আসা যাক বিদেশ থেকে উপহার হিসেবে এনেছেন বা পেয়েছেন এমন একটি মোবাইল ফোন আপনি আসলে কীভাবে রেজিস্ট্রেশন করবেন সে সম্পর্কে কথা বলা যাক।

 

এখানে আপনার মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম আছে:

 

1. প্রথমে আপনাকে https://neir.btrc.gov.bd/auth/login এই লিঙ্কে যেতে হবে এবং আপনার ব্যক্তিগত একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এই সাইটে প্রবেশ করার পর আপনি চাইলে বাংলা বা ইংরেজিতে গাইড পড়তে পারবেন। আপনি যদি কিছু বুঝতে না পারেন তবে আপনাকে অবশ্যই এই ওয়েবসাইট থেকে গাইডটি পড়তে হবে।

আরও পড়ুনঃ  নগদ একাউন্টে ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম ২০২৩

 

2. রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরে, আপনি বিশেষ (বিশেষ নিবন্ধন) নিবন্ধন বিভাগে যেতে পারবেন এবং IMEI নম্বর লিখতে পারবেন। IMEI নম্বর জানতে আপনার মোবাইল ফোন থেকে *#06# ডায়াল করুন। এই কোডটি ডায়াল করার পরে আপনি একটি 15 সংখ্যার নম্বর দেখতে পাবেন যা মূলত আপনার মোবাইল ফোনের IMEI নম্বর। আপনি এখানে এই নম্বর লিখবেন।

 

3. তারপরে আপনাকে প্রয়োজনীয় তথ্যগুলির একটি ফটো বা স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে (যেমন: পাসপোর্ট ভিসা, ইমিগ্রেশন, মোবাইল ক্রয়ের রসিদ ইত্যাদি) এবং আপলোড করার পরে আপনাকে সাবমিট বোতামে ক্লিক করতে হবে।

 

4. আপনার মোবাইল ফোন বৈধ হলে নিবন্ধন স্বয়ংক্রিয়ভাবে সম্পন্ন হবে। আর যদি আপনার মোবাইল ফোনটি অবৈধ হয় তাহলে আপনাকে SMS এর মাধ্যমে জানানো হবে। আর যদি আপনি মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করতে না পারেন, তাহলে সরকারী ব্যবস্থা অনুযায়ী আপনার মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে।

 

তাই আপনার উচিত দ্রুত মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করা এবং রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে অবৈধ ফোন বৈধ করা।

 

  বিদেশ থেকে কয়টা মোবাইল আনা যায়?

 

বিদেশ থেকে কয়টি মোবাইল ফোন আনা যায় তা অনেকেই জানতে চান। সেক্ষেত্রে আমি সংক্ষেপে বলতে চাই বিদেশ থেকে আপনার সাথে সর্বোচ্চ দুটি মোবাইল নিয়ে আসতে পারবেন কোনো ডিউটি ​​ছাড়াই। আর আপনি যদি ডিউটি ​​বা ট্যাক্সসহ মোবাইল আনতে চান, তাহলে মোট ছয়টি মোবাইল সঙ্গে আনতে পারবেন। আমি আশা করি আপনি উত্তর পেয়েছেন।

 

  অনলাইন মোবাইল রেজিস্ট্রেশন কি?

আপনি যদি বিদেশ থেকে মোবাইল নিয়ে আসেন বা উপহার পান বা আপনি যদি আমাদের দেশ থেকে মোবাইল কিনে থাকেন তবে তা এখনো বাংলাদেশ সরকারের ডাটাবেজে নেই। আপনি এটি অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। আপনি নিবন্ধিত না থাকলে, এটি অবশ্যই একটি অবৈধ মোবাইল ফোন হিসাবে ঘোষণা করা হবে। আপনার নেটওয়ার্ক এমনকি সংযোগ বিচ্ছিন্ন হতে পারে। মূলত এই ওয়েবসাইটে গিয়ে মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করাকেই অনলাইন মোবাইল রেজিস্ট্রেশন বলে।

আরও পড়ুনঃ  ডোমেইন কি? কেনো ডোমেইন প্রয়োজন। বিস্তারিত...

 

ধন্যবাদ

Rate this post

4 thoughts on “অবৈধ মোবাইল ফোন বৈধ করার উপায়”

Leave a Comment