বাংলাদেশে কিভাবে অনলাইনে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করবেন

বাংলাদেশে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা কঠিন কাজ নয়।  আপনি অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিদ্যুৎ, গ্যাস এবং  পানির মতো সমস্ত ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করে থাকেন।  ডিজিটালাইজড হওয়ার পর এখন ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সহজ উপায়।

  • সকল সিমের নাম্বার চেক করার নিয়ম

বাংলাদেশে কিভাবে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করবেন

বাংলাদেশে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করুন:

স্থানীয় ব্যাংকে গিয়ে অর্থ প্রদান করা খুবই কঠিন কাজ কারণ আপনাকে ব্যাংকের আউটলেটের সামনে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হবে।  এটাও ঝামেলা সহ সময়ের ব্যাপার।  কখনও কখনও, এটি একটি দিনের যাত্রার প্রয়োজন হবে যা সময়ের অপচয়।  তাই আমি মনে করি বাংলাদেশে অনলাইনে বিল পরিশোধ করা ভালো।

আমাদের দেশে বিদ্যুতের বিল পরিশোধের ২টি উপায় রয়েছে।

1. ম্যানুয়াল উপায়

ক) ব্যাংক আউটলেটে বিল পরিশোধ করুন:

খ) পোস্ট অফিসে বিল পরিশোধ করুন:

2. অনলাইন পেমেন্ট

ক) মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিল পরিশোধ:
খ) অনলাইনের মাধ্যমে বিল পেমেন্ট:
গ) মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ:
ঘ) iPay দ্বারা বিল পরিশোধ করুন:

1. ম্যানুয়াল উপায়

ক) ব্যাংক আউটলেটে বিল পরিশোধ করুন:

এই প্রক্রিয়ায়, বিল প্রদানকারীদের আর্থিক ব্যাংকগুলিতে যেতে হবে এবং তাদের ক্রমিক নম্বরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।  এটি হার্ড ক্যাশ সিস্টেমের একটি উপায় যেখানে ব্যবহারকারীরা কাউন্টারে নগদে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে থাকে।  আমি মনে করি এটি ঝামেলা সহ একটি সময়ের প্রক্রিয়া কারণ এতে বিল-দাতাদের ব্যাংক আউটলেটের সামনে দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।  প্রকৃতপক্ষে এটি দীর্ঘকাল ধরে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ বিলের জন্য শুধুমাত্র প্রথাগত অর্থ প্রদানের পদ্ধতি ছিল।  এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে, কখনও কখনও, আর্থিক প্রতিষ্ঠান কিছু ভুল করে যা ঝামেলা তৈরি করে।  কিন্তু এখন সময়ের পরিক্রমায় সবই বদলে যাচ্ছে।  আপনার কাছে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার অন্য বিকল্প আছে।

আরও পড়ুনঃ  সকল সিমের VAS সার্ভিস বন্ধ করার নিয়ম

খ) পোস্ট অফিসে বিল পরিশোধ করুন:

ডাক সার্ভিসে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের আরেকটি ঐতিহ্যবাহী ব্যবস্থা রয়েছে।  মনোনীত পোস্ট অফিস থেকে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ গ্রহণ করা বাংলাদেশ সরকারের বাধ্যতামূলক আদেশ।  আসলে এটা বাংলাদেশের গ্রাম ও আধা-শহর এলাকার মানুষের জন্য করা হয়।

2. বাংলাদেশে অনলাইন বিল পেমেন্ট:

এটা একটা ভালো খবর যে বাংলাদেশের সব বিদ্যুৎ সেক্টর এখন ডিজিটালাইজড।  বাংলাদেশের বিদ্যুৎ বিভাগ এ খাতকে সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড করেছে।  এখন গ্রাহকরা অনলাইনের মাধ্যমে তাদের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে পারবেন।

বাংলাদেশে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের জন্য বিভিন্ন ধরনের অনলাইন পদ্ধতি রয়েছে।

ক) মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিল পরিশোধ:

বাংলাদেশের বিদ্যুৎ বিভাগ তাদের ব্যবহারকারীদের জন্য আরইবি পেমেন্ট সিস্টেম বা আরইবি বিল পেমেন্ট প্রক্রিয়া চালু করেছে।  কিন্তু মোবাইল ফোন ব্যবহার করে বিল পরিশোধ করতে গ্রাহকদের একটি টেলিটক সিম কার্ড থাকতে হবে।  প্রথমে, ব্যবহারকারীদের অবশ্যই তাদের সিম কার্ড নিবন্ধন করতে হবে এবং নির্দেশাবলী অনুসরণ করে এসএমএস লিখতে হবে এবং 727 নম্বরে পাঠাতে হবে। বিল পরিশোধ নিশ্চিত করতে আপনি সরাসরি *727*2 ডায়াল করতে পারেন।  *727*2 গ্রাহককে ডায়াল করতে আমি *বিল মাস*বিল বছর# এবং তারপরে চার সংখ্যার পিন টিপুন।  এই প্রক্রিয়া সারা দেশের জন্য।

খ) অনলাইনের মাধ্যমে বিল পেমেন্ট:

অর্থ এবং সময় বাঁচানোর জন্য এটি সর্বোত্তম প্রক্রিয়া।  আমি মনে করি অনলাইন বিল পেমেন্ট পদ্ধতি খুবই সহায়ক।

এই প্রক্রিয়াটির দুটি বিভাগ রয়েছে- একটি হল পোস্ট পেইড এবং আরেকটি হল প্রিপেইড পদ্ধতি।

প্রক্রিয়াটি নিম্নরূপ:-

প্রথমে বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (DPDC) ওয়েবসাইটে যান। (www.dpdc.org.bd)

তারপরে দ্বিতীয়ত, ভিসা কার্ড, মাস্টার কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, বা ডেবিট কার্ডের মত বিকল্প বেছে নিন এবং এছাড়াও ব্র্যাক, ডিবিবিএল ইত্যাদির মতো যেকোনো ব্যাঙ্ক বেছে নিতে পারেন। অনলাইন ব্যাঙ্কিংয়ের জন্য ব্যবহারকারীরা সাউথইস্ট ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, এবি ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, বেছে নিতে পারেন।  ইত্যাদি

আরও পড়ুনঃ  বিকাশ পিন রিসেট করার নিয়ম ২০২৩

তৃতীয়ত, ব্যাংক নির্বাচনের পরে, ব্যবহারকারীদের ওয়েবসাইটে তথ্য, গ্রাহক সংখ্যা, কার্ডের পিন এবং অর্থপ্রদানের পরিমাণ রাখতে হবে।

এটি সবই অনলাইনের মাধ্যমে বিল পরিশোধের জন্য।

গ) মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ:

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করারও এটি একটি ভালো উপায়।  নগদ, বিকাশ, রকেটের মতো অনেক অ্যাপ রয়েছে।  এটা খুবই সহজ এবং ভালো প্রক্রিয়া কারণ আপনি বিলের পরিমাণ, আগের বিল ব্যবহার করা পাওয়ার ইউনিট এবং অ্যাপের মাধ্যমে পেমেন্টের রেকর্ড চেক করতে পারেন।  আপনাকে শুধু মোবাইল অ্যাপে পে বিল বিকল্পে যেতে হবে এবং ‘বিদ্যুৎ বিল’ বিকল্পটি নির্বাচন করতে হবে এবং তারপরে আপনাকে ড্রপ মেনু থেকে ইউটিলিটি প্রদানকারী নির্বাচন করতে হবে।  এর পরে শুধু পরিমাণ পূরণ করুন এবং এগিয়ে রাখুন।  তারপরে ব্যবহারকারীকে লেনদেনটি দুবার চেক করতে বলা হবে।  তারপর ক্লায়েন্ট একটি সফল লেনদেনের জন্য একটি এসএমএস বা ইমেল পাবেন।

ঘ) iPay দ্বারা বিল পরিশোধ করুন:

বাংলাদেশে iPay থেকে বিল পরিশোধ করা একটি চলমান ঐতিহ্য।  আইপে থেকে বিল পরিশোধ করা খুবই সহজ প্রক্রিয়া কারণ এটি “মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ” এর মতো একই প্রক্রিয়া।

সুতরাং, সবকিছু পরিবর্তন হচ্ছে এবং আপনাকে ডিজিটাল বাংলাদেশের সাথে নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে এবং আপনার জীবনকে আরও সহজ করতে হবে।

FAQ:

অনলাইন পেমেন্ট কি অফলাইন বা নগদ পেমেন্টের চেয়ে ভাল?

অনলাইন পেমেন্ট অফলাইন বা নগদ পেমেন্টের চেয়ে ভাল কারণ এটি খুব সহজ উপায়।  অফলাইন বা নগদ অর্থপ্রদান, আপনাকে আর্থিক ব্যাংকগুলিতে যেতে হবে এবং তাদের সিরিয়াল নম্বরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।  অন্যদিকে, অনলাইন পেমেন্ট সময় নষ্ট না করে ঝামেলামুক্ত।

বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের জন্য কোন মোবাইল অ্যাপটি ভালো?

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিল পরিশোধের সেরা স্মার্ট উপায়।  বাংলাদেশে অনেক অ্যাপ আছে।  এর মধ্যে নগদ, বিকাশ, রকেটের মতো কয়েকটি অ্যাপ গ্রাহকদের মতামত অনুযায়ী খুব ভালো সেবা দিচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ  বিকাশ একাউন্ট ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম

ধন্যবাদ

Rate this post

1 thought on “বাংলাদেশে কিভাবে অনলাইনে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করবেন”

Leave a Comment